ব্যাকরণ পাঠের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা


ব্যাকরণ পাঠের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা 

ব্যাকরণ হলাে ভাষার সংবিধান স্বরূপ। কোনাে একটি ভাষার রূপ, প্রকৃতি ও অভ্যন্তরীণ বৈশিষ্ট্যের বর্ণনা থাকে ব্যাকরণে। ভাষা সম্পর্কে পরিপূর্ণ জ্ঞান অর্জন করতে চাইলে সে ভাষার ব্যাকরণ পাঠ করা প্রয়ােজন। কেননা ব্যাকরণে সে ভাষার প্রয়ােগ, শুদ্ধ-অশুদ্ধ বিষয় সম্পর্কে ধারণা দেওয়া থাকে। ভাষার আদর্শ প্রয়ােগের জন্য ব্যাকরণ-জ্ঞান অত্যাবশ্যক। ভাষা ব্যবহারের জন্য ব্যাকরণ পাঠ অপরিহার্য নয়। কেননা অনেক মানুষ রয়েছে যারা তাদের ভাষার ব্যাকরণ পাঠ করেনি, কিন্তু ভাষা ব্যবহার করছে। কিন্তু সে ভাষা ব্যবহারে কোনাে ভুল করলে ব্যাকরণ না জানার কারণে তার পক্ষে তা বােঝা সম্ভব নয়। আর এ সকল ভুল থেকে বের হয়ে আসা সম্ভব ব্যাকরণ পাঠের মাধ্যমে । ভাষার গতিধারার বর্ণনা থাকে ব্যাকরণে । তাই ভাষার বিকাশ সম্পর্কে জানার জন্যও ব্যাকরণ পাঠ করা প্রয়ােজন। ব্যাকরণ সম্পর্কে জ্ঞান না থাকলে ভাষার মূল আদর্শ থেকে বিচ্যুত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। ব্যাকরণ ভাষাকে সুশৃঙ্খল ও নিয়মতান্ত্রিক করে। ভাষা প্রবহমান নদীর স্রোতধারার মতাে বয়ে চলে। তাই সময়ের প্রয়ােজনে ভাষায় নানা পরিবর্তন সূচিত হয় । ভাষার এ সকল পরিবর্তনের ধারা সম্পর্কে জানতে হলে ব্যাকরণ পাঠ করা প্রয়ােজন। ব্যাকরণ সম্পর্কে যাদের ধারণা নেই তাদের ভাষা অমার্জিত, অসংগত ও ত্রুটিপূর্ণ হয়। মার্জিত শুদ্ধ ভাষা জানা ও ব্যবহারের জন্য ব্যাকরণ পাঠ করা জরুরি। 

ব্যাকরণ পাঠের প্রয়োজনীয়তা  নিচে দেওয়া হলাে : 

১. ভাষার গঠন, স্বরূপ ও প্রকৃতি সম্পর্কে ব্যাকরণ পাঠে ধারণা লাভ করা যায় । 

২. ভাষার শুদ্ধ-অশুদ্ধ বিষয় জানার জন্য ব্যাকরণ-জ্ঞান প্রয়ােজন । 

৩. ব্যাকরণ পাঠ করে ভাষা ব্যবহারের স্বেচ্ছাচারিতা থেকে মুক্ত থাকা যায় । 

৪. ব্যাকরণ পাঠ করলে ভাষা শুদ্ধ রূপে ব্যবহার করা যায় । 

৫. ভাষায় ব্যবহৃত প্রবাদ-প্রবচন ও বাগধারা সম্পর্কে ধারণা লাভ করার জন্য ব্যাকরণ পাঠ প্রয়ােজন। ৬. ভাষার বিবর্তনের ইতিহাস ব্যাকরণ পাঠ করে জানা যায় । 

৭. ভাষার প্রকৃত সৌন্দর্য উপলব্ধির জন্য ব্যাকরণ পাঠ করা প্রয়ােজন। 

৮. ব্যাকরণ পাঠ করলে ভাষার প্রকৃত আদর্শ রক্ষা করা যায়। 

৯. ব্যাকরণ ভাষাজ্ঞানকে নান্দনিক করে। 

১০. সাহিত্যের যথার্থ রস আস্বাদনের জন্যও ব্যাকরণ পাঠ করা প্রয়ােজন।

Rate this post