মাদকাসক্তির কুফল জানিয়ে ছোট ভাইকে একটি উপদেশ মূলক পত্র লেখ।

৫/২, মিরপুর-১০, ঢাকা।

২০ মার্চ ২০২১

স্নেহের সৃজন 
আমার স্নেহাশিস নিও। আশা করি, ভালাে আছ। তােমার ভালাে থাকাটাই আমার কামনা। 

গতকাল মায়ের চিঠি পেলাম। চিঠিতে বাড়ির খোঁজখবর জানতে পারলাম। তবে একটি খবর আমাকে খুবই চিন্তার মধ্যে ফেলে দিয়েছে। তা হলাে, তুমি নাকি কিছুদিন যাবৎ অসৎ ছেলেদের সাথে মিশে ধূমপান করছ। মা লিখেছেন, তিনি নাকি অন্য কারাে কাছ থেকে শুনেছেন। তাই ব্যাপারটা সত্য না মিথ্যা তা তুমিই ভালাে জানাে । যদি তা সত্য হয়, তবে খুবই দুঃখজনক। আমার পক্ষ থেকে তােমার জন্য সাবধান বাণী এই যে, যতদূর এগিয়েছ, সেখানেই থেমে যাও। ওপথ খুবই অন্ধকার, ভয়ংকর আর জীবনগ্রাসী। যারা নেশাগ্রস্ত হয় তাদের অনেকেই মনে করে তা তাদের অভ্যাসে পরিণত হবে না। তারা খেলাচ্ছলে মাদকদ্রব্য সেবন করছে। কিন্তু বাস্তব সত্য এই যে, তা একদিন তাদের অভ্যাসে পরিণত হয়। মাদকদ্রব্য গ্রহণের এ অভ্যাস মানবজীবনে সর্বনাশ ডেকে আনে। মাদকাসক্তি মানুষের স্নায়ুকে দুর্বল ও অকার্যকর করে দেয়। এর ফলে মানুষের শারীরিক ও মানসিক শক্তি লােপ পেতে থাকে। মাদকাসক্তি মানুষকে অন্ধকার পথে নিয়ে যায়। মাদকাসক্ত লােকেরা মাদকদ্রব্য সংগ্রহের জন্য চুরি, ডাকাতি, খুন, ছিনতাই প্রভৃতি অপকর্মে লিপ্ত হয়। মাদকাসক্তি শুরুর দিকে সাধারণ নেশা থাকলেও এর সর্বশেষ পরিণতি অনিবার্য মৃত্যু। মাদকাসক্তদের কারণে তার পরিবার ও সমাজ নানাভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। 

আমার পরামর্শ হচ্ছে, তুমি যদি ওপথে পা বাড়িয়ে থাকো তবে দেরি না করে এখনই ফিরে এসাে । নিজের পড়াশুনার প্রতি মনােযােগী হও। নিজেকে ভালােভাবে গড়ে তুলে দেশ ও জাতির উন্নয়নে ভূমিকা রাখাে। তােমার মঙ্গল কামনায় শেষ করছি।

ইতি        

তােমার বড়াে ভাই

সৌমিত্র    

✱ পেত্র লেখা শেষে খাম এঁকে খামের ওপরে ঠিকানা লিখতে হয়।

Rate this post