বৃক্ষের প্রয়োজনীয়তা বিষয়ে দুই বন্ধুর মধ্যে সংলাপ রচনা কর।

রহিম : করিম, তুমি কেমন আছ?

করিম: ভালাে আছি। তুমি কেমন আছ? 

রহিম : ভালাে আছি । তবে বৃক্ষরােপণ সপ্তাহ নিয়ে প্রচার-প্রচারণা, মাইকিং, উদ্বুদ্ধকরণ কর্মসূচি নিয়ে ব্যস্ত আছি । 

করিম : বিষয়টি নিয়ে আমিও সচেতন। ২৫টি মেহগনি গাছ কিনে বাড়ির চারপাশে লাগিয়েছি। কেননা আমাদের বেঁচে থাকার পিছনে বৃক্ষের অবদান সম্পর্কে আমি অবগত আছি। বন্যা, ঝড়-ঝঞা প্রভৃতি প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে বৃক্ষই আমাদের রক্ষা করে থাকে। তাই আমি অন্যদেরও বৃক্ষরােপণে উৎসাহিত করে থাকি। 

রহিম : বেশ বন্ধু! আমাদের দেশের যা অবস্থা নিজেও পরিবেশ সচেতন হতে হবে এবং অন্যকেও সচেতন করতে হবে। 

করিম : আমাদের দেশের মােট ভূমির মাত্র ১৭% বনভূমি। কিন্তু প্রয়ােজন ২৫% বনভূমি। দিনের পর দিন নির্বিচারে বৃক্ষ নিধন করছি। এর ফলে পরিবেশ দূষণ বাড়ছে, প্রাকৃতিক ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে এবং নানা ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগ দেখা দিচ্ছে। 

রহিম : এসব কারণে বন্যা, খরা, অতিবৃষ্টি, অনাবৃষ্টি, বৈশ্বিক উষ্ণায়ন এগুলােই প্রকৃতির প্রতিশােধ । বৃক্ষনিধনের কারণেই এগুলাে দেখা দিচ্ছে। 

করিম : আর বৈশ্বিক উষ্ণায়নের প্রভাব তাে বাংলাদেশেই বেশি পড়বে। 

রহিম : হ্যাঁ, এই ক্ষতিকর হুমকি থেকে বাঁচার জন্য প্রত্যেকের ১টি করে হলেও গাছ লাগানাে উচিত। 

করিম: হ্যাঁ, বন্ধু সবাই যদি ১টি করেও গাছ লাগায় তাহলেও কোটি কোটি নতুন গাছ লাগানাে হবে। এর মাধ্যমেই আমাদের বৃক্ষরােপণ কর্মসূচি সফল হবে। 

রহিম : চলাে বন্ধু আমরা গাছ লাগাই এবং পাশাপাশি অন্যদেরও উদ্বুদ্ধ করি ।

করিম : হ্যাঁ, চলাে। তােমার সাথে আমিও বৃক্ষরােপণ সপ্তাহ পালনের কার্যক্রমে অংশ নেব এবং সকলকে বৃক্ষরােপণের প্রয়ােজনীয়তা সম্পর্কে অবগত করব। 

Rate this post