যে সকল শিশুদের দৃষ্টিশক্তি স্বাভাবিক শিশুদের থেকে দুর্বল প্রকৃতির এবং যারা বড়াে হরফের ছাপানো লেখা, ব্ল্যাকবোর্ডের শুধু বড়ো বড়ো লেখা পড়তে পারে, তাদের বলা হয় আংশিক দৃষ্টি সম্পন্ন শিশু। এরা দৃষ্টি সহায়ক বিভিন্ন উপকরণের ব্যবহারের মাধ্যমে দেখতে সক্ষম হয়।

(১) বড়াে হরফের বইয়ের দ্বারা শিখন: আংশিক দৃষ্টিশক্তিসম্পন্ন শিশুদের শিক্ষাদানের জন্য বড়াে হরফের বইয়ের ব্যবস্থা করা হয়। সাধারণ শিক্ষার্থীদের জন্য যেখানে ১০ পয়েন্টের বা ১/২ ইঞ্চির সমান অক্ষর ব্যবহার করা হয়, সেখানে এই ধরনের শিক্ষার্থীদের জন্য ১৮-২৪ পয়েন্টের অক্ষর ব্যবহার করা হয় বা ১/২ থেকে ২/৩ ইঞ্চির সমান পর্যন্ত হয়। এইসব শিশুদের পড়ার সুবিধার্থে হাসপাতাল ও জেল পুনর্বাসন কেন্দ্রগুলিকে হ্যান্ড লেন্স এবং ম্যাগনিফাইং গ্লাস সরবরাহ করা হয়।

(২) শুতি সহায়ক উপকরণের দ্বারা শিখন : যেহেতু আংশিক দৃষ্টিশক্তি সম্পন্ন শিশুরা চোখে ভালো দেখতে পায় না তাই তাদের শিক্ষাদানের জন্য টেপরেকর্ডার, গ্রামোফোন, টকিং বুক, অডিও। ক্যাসেট প্রভৃতি শ্রবণ সহায়ক উপকরণের সাহায্য নেওয়া হয়।

(৩) দর্শন সহায়ক যন্ত্রের দ্বারা শিখন : এপিডােস্কোপ, প্রােজেক্টার মেশিনের বৃহদীকরণের সাহায্যে পাঠ্যসূচির বিভিন্ন অংশকে পর্দায় ফেলে বড় করে আংশিক দৃষ্টি সম্পন্ন শিশুদের শিক্ষাদানের কাজে ব্যবহার করা হয়।

(৪) চশমা ব্যবহার দ্বারা শিখুন : আংশিক দৃষ্টিশক্তিসম্পন্ন শিশুরা যাতে স্বাভাবিক শিশুদের জন্য লেখা বই সহজে পড়তে পারে তার জন্য ফ্রেশনেল লেন্স, গ্যালিলিয়ান চশমা প্রভৃতি প্রদান করা হয়।

(৫) শ্রেণীকক্ষে কিছু কৌশল প্রয়োগ : শ্রেণিকক্ষে পাঠদানকালে শিক্ষকের পাঠদানের জন্য কিছু কৌশল অবলম্বন করতে পারেন। যেমন— 

  • (a) শ্রেণিকক্ষের প্রথম সারিতে বসার ব্যবস্থা করে দেওয়া, 
  • (b) ব্ল্যাকবোর্ডে বড়ো বড়ো করে লেখা, 
  • (c) ব্ল্যাকবোর্ডে লেখার সময় শব্দগুলো উচ্চারণ করে লিখলে ভালো হবে, 
  • (d) জোরে জোরে উচ্চারণ করে লিখবে।
Rate this post